শুক্রবার, ০৩ এপ্রিল ২০২০, ০৪:৩৩ অপরাহ্ন

মসজিদ আল হারামে তৈরি হচ্ছে বিশ্বের সবচেয়ে বড় ছাতা

মসজিদ আল হারামে তৈরি হচ্ছে বিশ্বের সবচেয়ে বড় ছাতা

ডেইলি সিলেট মিডিয়াঃ সৌদি আরবের পবিত্র নগরী মক্কায় হজ এবং ওমরাহ পালনে আসা হজযাত্রীদের সুবিধার্থে মসজিদ আল হারামে তৈরি করা হচ্ছে একটি ছাতা, যার নিচে অবস্থান করতে পারাবেন ২৫০০ ধর্মপ্রাণ মুসলমান। বিশ্বের সবচেয়ে বড় ছাতা হতে যাচ্ছে এটি।

মক্কার বাইতুল্লাহ চত্ত্বরে প্রায় ৩০ মিটার উচ্চতায় স্থাপন করা হচ্ছে ছাতাটি তীব্র রোদ থেকে মুসল্লিদের সুরক্ষা দিতে এ ব্যবস্থা করছে কর্তৃপক্ষ।

২০১৪ সালের ডিসেম্বর মাসে সৌদির প্রয়াত বাদশাহ মালিক আব্দুল্লাহ বিন আব্দুল আজিজ আল-সাউদ (পবিত্র দুটি মসজিদের খাদেম) প্রচণ্ড তাপমাত্রায় হজ ও ওমরাহ পালনকারীদের কষ্টের কথা চিন্তা করে এ ছাতা নির্মাণে ঘোষণা দেন।

মদিনার মসজিদে নববির ভেতরের উন্মুক্ত স্থান ও বাইরের আঙিনায় স্থাপিত ভাঁজ করা ছাতার আদলেই বিশ্বের সবচেয়ে বড় ছাতা স্থাপনের কাজ শুরু করেছে হারামাইন কর্তৃপক্ষ।

কাবা শরিফের আঙিনায় স্থাপিত হতে যাওয়া বিশ্বের সবচেয়ে বড় এ ছাতার দৈর্ঘ্য এবং প্রস্থ হবে ৫৩ মিটার। অর্থাৎ ছাতাটি ২৮০৯ বর্গমিটার। কাবা শরীফের ছাদও এ ছাতার নিচে থাকবে।

সৌদি সরকারের শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সহযোগিতায় জাপানের টেকনোলজিতে জেনারেল প্রেসিডেন্সি টু হলিমস্ক নামে একটি কোম্পানি এ ছাতাটি নির্মাণ কাজে অংশ নিয়েছে। ২৫ জন অভিজ্ঞ ইঞ্জিনিয়ারের নেতৃত্বে ছাতাটি নির্মিত হবে। এর ওজন হবে প্রায় ১৬ টন।

এ ছাড়া হারাম শরীফের উপরে ৮টি হাই টেকনোলোজি সাইজের ছাতা বসানো হবে। উত্তর পাশে বসান হবে আরও ৫৪টি ছাতা। এ ব্যবস্থায় সবগুলো ছাতা মিলে ১৯ হাজার ২০০ স্কয়ার মিটার স্থান জুড়ে ছায়া পাবেন ধর্মপ্রাণ মুসলমানগণ।

ছাতাগুলোর বিমে বড় ঘড়ি ও এইচডি স্ক্রিন সংযুক্ত করা হবে। হাজীদের জন্য এতে থাকবে দিকনির্দেশনা। ছাতার ভেতরে এসি সংযুক্ত করা হবে। হাজিগণ এবং নামাজ পড়তে আসা মুসল্লিগণ ২২টি বেঞ্চ ও উচ্চ নিরাপত্তা ব্যবস্থার আওতায় থাকবেন। মসজিদে আল হারামের উত্তের পাশে স্থাপিত ছাতাগুলোর নিচে একসঙ্গে নামাজ পড়তে পাড়বেন ৪ লাখ মুসল্লি।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




© All rights reserved © 2017 Bditfactory.com
পোর্টাল বাস্তবায়নে : বিডি আইটি ফ্যাক্টরী লিঃ