রবিবার, ২৯ মার্চ ২০২০, ০৫:২৮ পূর্বাহ্ন

শীর্ষ সংবাদ :
অসহায় মানুষের প্রতি সাহায্য-সহানুভূতির হাত সম্প্রসারিত করা এখনি প্রয়োজ নবীগঞ্জে করোনা ভাইরাস সংক্রমন প্রতিরোধে সহকারী পুলিশ সুপারের প্রচারণা ৫৬ হাজার কোটি টাকা দান করলেন ধনকুবের আজিম হাসমি ১৫ কোটি টাকার চিকিৎসা সামগ্রী দিলো বেক্সিমকো জটিলতা কেটে গেছে, আকিজ গ্রুপের হাসপাতাল হচ্ছে নিউইয়র্কে করোনায় মৃতদের জানাজা পড়াচ্ছেন বাংলাদেশি আলেম জনগণের পাশে না দাঁড়ানো এমপি মন্ত্রীদের তালিকা তৈরির নির্দেশ শিবগঞ্জে একজনের মৃত্যু, ১৫ বাড়ি লকডাউন ঘোষণা ! আগামীকাল থেকে টিভিতে ক্লাস শুরু, রুটিন প্রকাশ। দেখুন এখানেই সিলেট সিটি কর্পোরেশন ও সদর উপজেলায় খাদ্যসামগ্রী বিতরণ শুরু!
যুক্তরাষ্ট্রে কেন এত দ্রুত ছড়াচ্ছে করোনা ভাইরাস? ……আফজাল রেজাউল হক

যুক্তরাষ্ট্রে কেন এত দ্রুত ছড়াচ্ছে করোনা ভাইরাস? ……আফজাল রেজাউল হক

সিলেট মিডিয়া ডেস্কঃ দুপুর ৩ টায় পরিসংখ্যান দেখাচ্ছিল ৫৯,৫৫৫ জন আক্রান্ত। রাত ১০ টায় এখন দেখি এ সংখ্যা ৬৮,৫০৫। এভাবে চলতে থাকলে অতি শিঘ্রই আমরা ইতালিকে ছাড়িয়ে যাব। এত দ্রুত অবনতির কিছু আমি কারণ আমি ব্যাক্তিগতভাবে বোঝতে পেরেছি বলেই মনে হয়।

কাস্টমার সার্ভিসে কাজ করি বিধায় প্রতিদিন গড়ে ৪ থেকে ৫ শত মানুষের সাথে কথা হয়। এদের প্রায় সবার সাথেই করোনা ভাইরাস সংক্রমন ও প্রতিরোধ নিয়ে তাদের চিন্তাভাবনা কি তা জানার চেষ্টে করি। আশ্চর্যজনক হলেও সত্য যে সারা বিশ্বে নেতৃত্ব দেয়া এ জাতীর প্রায় ৭০ থেকে ৮০ ভাগ মানুষই যে উত্তর গুলো দেয় তা হল;

“I don’t give a f*** to this shit.”

“I don’t believe this shit,its all political game.”

“Oh..i dont care”.

এ জাতীয় ডায়লগ প্রসব করে।
অর্থাৎ, এরা অনেকেই করোনা ভাইরাস এর ভয়াবহতা আমলেই নিতে চায় না। অনেকে তো এ রকম কোন ভাইরাস আদৌ আছে কি না তা নিয়ে প্রশ্ন তোলে।
এখন প্রশ্ন হল করোনা সংক্রমনের পুরো বিষয়টাই যদি এরা অবিশ্বাস করে তাহলে কি প্রতিরোধের জন্য যে সব ‘হাইজিন’ বা স্বাস্থ সুরক্ষা মানবে?

অবশ্যই না।
বরং এরাই সবচেয়ে বেশি আক্রান্ত হচ্ছে আর ছড়াচ্ছে দ্রুত বেগে।

এরা এতটাই উদ্যত আর মূর্খ যে সরকার বাধ্যতামূলকভাবে যখন নিত্যপ্রয়োজনীয় ব্যাবসা বাদে সব বন্ধ করে ঘরে থাকার আহবান করছে তখন অনেকেই মনের সুখে ৪ /৫ জন মিলে লটারি খেলায় মগ্ন অথবা বাহিরে হ্যাং আউট বা আড্ডা দিচ্ছে।

ট্রাম্প প্রশাসন ব্যাবসা প্রতিষ্টান বন্ধ করে ‘লকডাউন’ বা ‘কার্ফিউ’ ঘোষনা দিলেও এটা মানা জনগনের জন্য বাধ্যতামূলক করে নি। একদিকে অর্থনৈতিক ব্যাপক ক্ষতি হচ্ছে কিন্তু কাজের কাজ কিছুই হচ্ছে না।

কানাডা,ফ্রান্স বা ইউরোপের অন্যান্য দেশগুলো যেখানে প্রতি নাগরিকের জন্য বাধ্যতামূলক হোম কোরেন্টাইন ঘোষনা দিয়েছে। আমেরিকা তখন হাটছে উল্টো পথে চরম ঔদ্ধত্ব আর আহংকারের সাথে।

এর পরিণাম যে কত ভয়াবহ তা কিছুটা হলেও বোঝতে শুরু করেছে তারাও।
আল্লাহ সহায়।

মার্চ ২৬, ২০২০, নিউ জার্সি, যুক্তরাষ্ট্র।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




© All rights reserved © 2017 Bditfactory.com
পোর্টাল বাস্তবায়নে : বিডি আইটি ফ্যাক্টরী লিঃ