শুক্রবার, ১০ Jul ২০২০, ০৫:২৮ পূর্বাহ্ন

শুভ বড়দিন আজ

শুভ বড়দিন আজ

ডেইলি সিলেট মিডিয়াঃ খ্রিস্টান ধর্মাবলম্বীদের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব শুভ বড়দিন (ক্রিস্টমাস) আজ বুধবার। দুই হাজার বছর আগে এই শুভ দিনে পৃথিবীকে আলোকিত করে জন্মগ্রহণ করেন খ্রিস্টধর্মের প্রবর্তক যিশুখ্রিস্ট। বেথেলহেমের এক গোয়ালঘরে কুমারীমাতা মেরির কোলে জন্ম হয়েছিল যিশুর। খ্রিস্ট ধর্মানুসারীরা বিশ্বাস করেন, যিশু ঈশ্বরের পুত্র। বিশ্বের অন্যান্য দেশের মতো বাংলাদেশেও উৎসবমুখর পরিবেশে দিনটি উদযাপন করতে ব্যাপক প্রস্তুতি নিয়েছে খ্রিস্টান সম্প্রদায়।

আজ সরকারি ছুটির দিন। দিনটি উপলক্ষে প্রেসিডেন্ট মো. আবদুল হামিদ ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা খ্রিস্ট ধর্মাবলম্বীদের শুভেচ্ছা জানিয়ে পৃথক বাণী দিয়েছেন। বড়দিন উদযাপন উপলক্ষে দেশের সব চার্চ ও তারকা  হোটেলগুলোকে ক্রিসমাস ট্রি, রঙিন বাতি, বেলুন আর ফুল দিয়ে সাজানো হয়েছে। পাশাপাশি হোটেল ও পরিবারগুলোতে নানা ধরনের কেক, পিঠা ও বিশেষ খাবারের আয়োজন করা হয়েছে।

বাংলাদেশ খ্রিস্টান অ্যাসোসিয়েশন সূত্রে জানা গেছে, গতকাল মঙ্গলবার রাতে গির্জায় বিশেষ প্রার্থনার আয়োজন করা হয়েছে। আজ সকাল থেকেও বড়দিনের প্রার্থনা অনুষ্ঠিত হবে। রাজধানীর কাকরাইল ও তেজগাঁও ক্যাথলিক গির্জায় বড়দিনের বিশেষ প্রার্থনার আয়োজন করা হয়েছে। গির্জা ও এর আশপাশে রঙিন বাতি জ্বালানোর ব্যবস্থা করা হয়েছে। এছাড়াও প্রচুর জরি লাগিয়ে গির্জার ভেতর সুসজ্জিত করা হয়েছে। ভেতরে সাজানো হয়েছে ক্রিসমাস ট্রি। বড়দিন উপলক্ষে বাংলাদেশ খ্রিস্টান অ্যাসোসিয়েশনের পক্ষ থেকে বাংলাদেশসহ বিশ্বের সব খ্রিস্টান সম্প্রদায়ের লোকজনকে প্রীতি ও শুভেচ্ছা জানানো হয়েছে।

বড়দিন ঘিরে সতর্ক আইনশৃঙ্খলা বাহিনীঃ খ্রিস্ট ধর্মাবলম্বীদের ধর্মীয় উৎসব বড়দিন উপলক্ষে সতর্ক আইনশৃঙ্খলা বাহিনী। দেশীয় ও আন্তর্জাতিক প্রেক্ষাপটকে পুঁজি করে এইদিনে কোনো অশুভ গোষ্ঠী যাতে নাশকতা করতে না পারে সেদিকে তীক্ষ্ণ নজরদারি শুরু করেছে গোয়েন্দারা। খ্রীস্টানদের চার্চ ও সরকারি কেপিআইভুক্ত এলাকাগুলোতে কঠোর নিরাপত্তা বলয় গড়ে তোলা হয়েছে। ইতিমধ্যে চার্চগুলোতে তিনস্থরের নিরাপত্তার ব্যবস্থার উদ্যোগ নিয়েছে নিরাপত্তা বাহিনী। বড়দিন উপলক্ষে ইনডোরের অনুষ্ঠান সন্ধ্যা ৭ টার মধ্যেই শেষ করতে হবে। এবারের বড়দিনের অনুষ্ঠান ইনডোরের বাইরে করতে দেয়া হবে না। খ্রিস্টানদের ধর্মীয় উৎসব বড়দিনকে ঘিরে ঢাকাসহ সারাদেশে কোন সুনির্দিষ্ট নিরাপত্তার হুমকি নেই। তবে পুলিশ কোন আশঙ্কাকে উড়িয়ে দিচ্ছে না।

নাশকতাকারীরা যাতে কোন অরাজকতা করতে না পারে সেদিক বিবেচনা করেই বড়দিনের নিরাপত্তার ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে।

এ বিষয়ে র‌্যাবের আইন ও গণমাধ্যম বিভাগের পরিচালক লে. কর্নেল সারোয়ার বিন কাসেম জানান, বড়দিনে চার্চগুলোতে র‌্যাবের পক্ষ থেকে কঠোর নিরাপত্তা ব্যবস্থা গড়ে তোলা হয়েছে। ওই উৎসবকে ঘিরে কোন সুনির্দিষ্ট হুমকি নেই।

র‌্যাব ও পুলিশের গোয়েন্দা সূত্রে জানা গেছে, উগ্রবাদ দমনে দেশের নিরাপত্তা বাহিনী সফলতা দেখিয়েছে। বর্তমানে তা আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর নিয়ন্ত্রণে আছে। গত বছর শুভ বড়দিনে শ্রীলংঙ্কার গির্জা ও হোটেলে বড় হামলার ঘটনা ঘটেছে। ওই হামলার পর থেকেই বড়দিন উপলক্ষে আশপাশের দেশগুলোত কঠোর নিরাপত্তা ব্যবস্থা গড়ে তোলা হয়।
সূত্র জানায়, বড়দিন উপলক্ষে বিশেষ নিরাপত্তার ছক আঁকা হয়েছে। তিনদিন আগে থেকেই ঢাকা ও সারাদেশের খ্রিস্টানদের চার্চগুলোতে অবস্থান নিয়েছে আইন শৃঙ্খলা বাহিনী।

র‌্যাবের গোয়েন্দা বিভাগ সূত্রে জানা গেছে, অনুষ্ঠানের শুরুর সকাল বেলায় র‌্যাব ডগ স্কোয়াড দিয়ে সুইপিং করবে। চার্চগুলোতে দর্শনার্থীকে আর্চওয়ে দিয়ে ঢুকতে দেয়া হবে। মেটাল ডিটেক্টর দিয়ে তল্লাশি করা হবে। চার্চের প্রাচীর টপকে কেউ যাতে ঢুকতে না পারে সেদিকে নজর রাখা হবে। চার্চকে ঘিরে কয়েক প্লাটুন পুলিশ মোতায়েন করা হবে। এছাড়াও ভেতরে ও বাইরে সাদা পোশোকে গোয়েন্দা সংস্থার সদস্যরা নজরদারি গড়ে তুলবেন। চার্চের সামনের সড়ক গুলোতে র‌্যাবের ভ্রামমাণ মোটরসাইকেলগুলো টহল দিবে।   

সূত্র জানায়, চার্চ এলাকায় নিরবচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ ব্যবস্থা থাকবে। চার্চ এলাকায় কোনো ভাসমান দোকান বা হকার বসতে দেয়া হবে না। কোনো ধরনের ব্যাগ, ট্রলিব্যাগ ও ব্যাকপ্যাক নিয়ে চার্চে আসা যাবে না। ইনডোরের অনুষ্ঠান সন্ধ্যা ৭ টার মধ্যে শেষ করতে হবে। এছাড়াও এবার কাউকে বড়দিন উপলক্ষে ইনডোরের বাইরে অনুষ্ঠান করতে দেয়া হবে না। যদি কেউ করতে চায় তাহলে পুলিশের পূর্বানুমতি লাগবে। তবে সূত্র নিশ্চিত করেছে যে, এবার ইনডোরের বাইরে কোন অনুষ্ঠান করতে দেয়া হবে না। এছাড়াও বড়দিন উপলক্ষে উন্মুক্ত স্থানে বা বাড়ির ছাদে গান-বাজনা করা ও আতশবাজি ফোটানো সম্পূর্ণ নিষিদ্ধ থাকবে। কোন আপত্তিকর ঘটনা ঘটলে তার জন্য চার্চগুলোতে আগে থেকেই নিরাপত্তায় থাকবে ফায়ার সার্ভিস ও অ্যাম্বুলেন্স ব্যবস্থা। যাতে তরিৎ ব্যবস্থা নেয়া যায়।


Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




© All rights reserved © 2017 Bditfactory.com
পোর্টাল বাস্তবায়নে : বিডি আইটি ফ্যাক্টরী লিঃ