বৃহস্পতিবার, ২১ জানুয়ারী ২০২১, ০২:১৯ পূর্বাহ্ন

শীর্ষ সংবাদ : :
বিদায় পিতিবি: ট্রাম্প ২১ জানুয়ারি : আজকের দিনে ২০২৭ সালের মধ্যে ৫০ লাখ লোকের কর্মসংস্থান হবে আফ্রিকায় : পররাষ্ট্রমন্ত্রী ‘মেগা প্রকল্পের কাজ শেষ হলে আমূল পরিবর্তন ঘটবে’ : পরিকল্পনামন্ত্রী গণতন্ত্র রক্ষা পেয়েছে: প্রথম ভাষণে প্রেসিডেন্ট বাইডেন নির্বাচনে জেতায় স্বামীকে কাঁধে নিয়ে ঘুরলেন স্ত্রী, ছবি ভাইরাল বাইডেনের নীতির সুফল পেতে পারে বাংলাদেশ প্রেম, বিয়ে, পরদিন ‘বাসর ঘর’-এ মিলল তন্বীর লাশ! এক সতীনকে জেতাতে তিন সতীনের প্রচারণা সিলেট ধোপাগুলে ৬ বছরের শিশুকে ‘ধর্ষণ’, আটক ১ সিলেটে পানির দামে পেঁয়াজ! সিলেট জেলা ও মহানগর তাঁতী লীগের কমিটি গঠন সুনামগঞ্জের মেয়রের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা সিকৃবিতে মাৎসবিজ্ঞান অনুষদের সেমিনার অনুষ্ঠিত সিলেটে র‌্যাবের জালে ৩ জাতীয় সংসদে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দেয়ার দাবি সিলেট সদরে প্রধানমন্ত্রীর ১৪৪টি ‘স্বপ্ননীড়’ দক্ষিণ সুরমায় ভোররাতে পুলিশের ঝটিকা অভিযান, আটক ৬ সিলেট র‌্যাবের সন্ত্রাসবিরোধী ম্যারাথন শুক্রবার : প্রধান অতিথি পররাষ্ট্রমন্ত্রী রাত ১০টায় শপথ নেবেন বাইডেন, নজিরবিহীন নিরাপত্তা
সুনামগঞ্জে স্ত্রীকে প্রাণে মারার চেষ্টা, জোড়পূর্বক তালাক নামায় সই নেয়ার অভিযোগ

সুনামগঞ্জে স্ত্রীকে প্রাণে মারার চেষ্টা, জোড়পূর্বক তালাক নামায় সই নেয়ার অভিযোগ

ডেইলি সিলেট মিডিয়া ডেস্কঃ সুনামগঞ্জের তাহিরপুরে যৌতুকের জন্য গর্ববতী এক স্ত্রীকে পিঠিয়ে প্রাণে মারার চেষ্টার অভিযোগ উঠেছে স্বামীর বিরুদ্ধে।

সেই সঙ্গে তাকে ভয় ভীতি দেখিয়ে গুরুতর আহত অবস্থায় ডিভোর্স পেপারে সই নিয়ে তাকে স্বামীর বাড়ি থেকে তাড়িয়ে বাবার বাড়ি পাঠিয়ে দিয়েছে। নির্যাতিতা স্ত্রীর নাম শেফালি আক্তার।

তিনি উপজেলার শ্রীপুর উত্তর ইউনিয়নের বীরেন্দ্র নগর গ্রামের মৃত নুরজ্জামনের মেয়ে শেফালি আক্তার (৩১)।

সেফালি আক্তার বর্তমানে মুমূর্ষু অবস্থায় তাহিরপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

জানা যায়, প্রায় ৭ বছর আগে শেফালী আক্তারের ৭ বছর পূর্বে বিয়ে হয় পাশ্বর্তী মধ্যনগর থানার উত্তর বংশিকুন্ডা ইউনিয়নের রামপুর গ্রামের মোহাম্মদ আলীর ছেলে সোহরাব মিয়ার সাথে। বিয়ের সময় সেফালীর বাবা নুর জামান লক্ষাধিক টাকা দেয় তার স্বামী সোহরাবকে যৌতুক হিসেবে। এরই মধ্যে তাদের ঔরশে একটি সন্তানও জন্ম নেয়, তাদের সংসার ভালোই চলছিলো।

সম্প্রতি তিনি আবার গর্ভবতী হন। গর্ভবতী হওয়ার পর থেকে স্বামী সোহরাব তাকে আবার যৌতুক হিসেবে টাকা দেয়ার জন্য চাপ দিতে থাকে। এ নিয়ে প্রায়ই তাদের মধ্যে ঝগড়া ঝাটি হয় এবং তাকে অমানবিক ভাবে প্রায় সময় তার স্বামী তাকে মারধর করতে থাকেন।

গত ৬ জানুয়ারী বুধবার রাতে টাকা নিয়ে আবার কথা কাটাকাটি হয় তাদের মধ্যে। এক পর্য়ায়ে সোহরাব হোসেন তাকে বেধরক মারপিট করে প্রাণে মারার চেষ্টা করে এবং ভয় ভীতি দেখিয়ে ডিভোর্স পেপারে সই রেখে ঘর থেকে তাড়িয়ে দেয় স্ত্রী সেফালীকে। ঐ রাতে তিনি পাশ্ববর্তী লোকমান মিয়ার বাড়িতে কোন রকম আশ্রয় নিয়ে জীবন রক্ষা করেন। সংবাদ পেয়ে শেফালী আক্তারের বড় ভাই সেলিম মিয়া বৃহস্পতিবার সকালে তাকে গুরুতর আহত অবস্থায় তাহিরপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেন।

বংশিকুন্ডা উত্তর ইউনিয়নের রামপুর গ্রামের ইউপি সদস্য নুরুজ্জামন বলেন, ‘ঝগড়াঝাটির বিষয়টি আমরা শুনেছি। তবে জোড় করে ডিভোর্স নেয়ার বিষয়টি আমার জানা নেই।’

উত্তর বংশিকুন্ডা ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান বিল্লাল হোসেন বলেন, “সোহরাব মিয়া তার স্ত্রীর স্বেচ্ছায় চলে যাওয়ার বিষয়টি আমাকে বলেছে। জোড় করে তাকে বিদায় করে দেয়া হয়েছে কি না তা আমার জানা নেই।”

মধ্যনগর থানা ওসি (তদন্ত) নব গোপাল দাস বলেন, এ বিষয়ে থানায় কোন অভিযোগ হয়নি। অভিযোগ পেলে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

 





© All rights reserved © 2018 dailysylhetmedia
পোর্টাল বাস্তবায়নে : বিডি আইটি ফ্যাক্টরী লিঃ