বৃহস্পতিবার, ১৩ মে ২০২১, ০৫:০০ পূর্বাহ্ন

শীর্ষ সংবাদ : :
জালালাবাদ এসোসিয়েশন ফ্রান্স শাখার ইফতার বিতরণ মরহুমা হাজী আফতারা বিবি চৌধুরী ট্রাষ্টের ব্রিটিশ সলিসিটর প্রিন্স সাদিক চৌধুরীর পক্ষ থেকে ইফতার বিতরণ সিলেটে প্রতিবন্ধী পরিবারকে ঈদ উপহার দিলেন ছাত্রলীগ নেতা ঝুটন প্রবাসীরা দেশের মাটি ও মানুষের কথা সব সময় মনে রাখেন : নাদেল গরীব ও দুস্থদের মাঝে ইসলামী যুব আন্দোলন সিলেট মহানগরের ঈদ সামগ্রী বিতরণ সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান গিয়াস মিয়ার মৃত্যুতে আ.ন.ম. ওহিদ কনা মিয়ার শোক শ্রমজীবী মানুষের মাঝে জেলা ফুল ব্যবসায়ী সমিতির ঈদ উপহার খাদ্য সামগ্রী বিতরণ সিলেটবাসীকে ঈদের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন সিমেবি’র উপাচার্য ডা. মোর্শেদ আহমদ চৌধুরী মন-তরী ফাউন্ডেশন এর ঈদ সামগ্রী বিতরণ সম্পন্ন নবীগঞ্জে অন্তঃসত্ত্বা নারীর আত্মহত্যা, শ্বশুর বাড়ির লোকজন হত্যা করেছে বলে অভিযোগ : স্বামী আটক ‘প্রবাসে পশ্চিম বিশ্বনাথ ইউকে’র আত্মপ্রকাশ শাহজালাল মহাবিদ্যালয়ের সাবেক ও বর্তমান শিক্ষার্থীদের পক্ষ থেকে ঈদ উপহার কোয়াড নিয়ে আগ বাড়িয়ে কথা বলেছে চীন : পররাষ্ট্রমন্ত্রী শতভাগ উৎসব ভাতার দাবীতে শিক্ষক ফোরামের স্মারকলিপি প্রদান কামরান পরিবারের ঈদ সামগ্রী বিতরণ গ্রেটার সিলেট ইউ.কে’র খাদ্য সামগ্রী বিতরণ সাংবাদিক বদরুর রহমান বাবরের ঈদুল ফিতরের শুভেচ্ছা উৎমা কোয়ারী ইজারা নিয়ে ধূম্রজালের সৃষ্টি গোয়াইনঘাট উপজেলাবাসীকে চেয়ারম্যান সাহাব উদ্দিন শিহাবের ঈদ শুভেচ্ছা দেশবাসীকে কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগ সদস্য আলী হোসেন আলম’র ঈদ শুভেচ্ছা
শাল্লার মনুয়া কমিউনিটি ক্লিনিক ঝুঁকিপূর্ণ : আতঙ্কে সেবাদানকারীরা

শাল্লার মনুয়া কমিউনিটি ক্লিনিক ঝুঁকিপূর্ণ : আতঙ্কে সেবাদানকারীরা

শান্ত কুমার তালুকদার, শাল্লা প্রতিনিধি :: সরকারের কমিউনিটি ক্লিনিক মা ও শিশু স্বাস্থ্য সেবায় গ্রামীণ পর্যায়ে অগ্রণী ভূমিকা পালনসহ জনগণের দোরগোড়ায় স্বাস্থ্য সেবা পৌঁছে দিতে সক্ষম হয়েছে। তবে অবকাঠামোগত জরাজীর্ণতা, ঝুঁকিপূর্ণ ভবন উক্ত সেবায় নিয়োজিত সেবাদানকারীদের বাধা সৃষ্টি করছে। এমনই দৃশ্য দেখা গেছে সুনামগঞ্জের শাল্লা উপজেলার ৪নং শাল্লা ইউনিয়নের মনুয়া কমিউনিটি ক্লিনিকের ক্ষেত্রে।

রবিবার ২৫ এপ্রিল মনুয়া কমিউনিটি ক্লিনিকে গিয়ে দেখা যায়, মাত্র ১৮ কিংবা ১৯ বছর পূর্বে নির্মিত ভবনটি নিতান্ত জরাজীর্ণ অবস্থায় রয়েছে। ওই ভবনের চারপাশের দেয়ালের প্লাস্টার খসে পড়ে ইট দেখা যাচ্ছে। ছাদের প্লাস্টার খসে পড়ে রড দেখা যাচ্ছে এবং রডে ঝং ধরছে। যেকোনো সময় ওই ভবনের ছাদ ধ্বসে যেতে পাড়ে। ক্লিনিকে উপস্থিত সেবাদানকারীগণ জানান, আমরা অত্যন্ত ভয়ে ভয়ে কাজ করছি এবং উচ্চ ঝুঁকিতে থেকেই জনগণের মধ্যে স্বাস্থ্য সেবা প্রদান করছি। যেকোনো সময় ক্লিনিক ভবনটি ধ্বসে প্রাণহানীর মত ঘটনা ঘটতে পারে।

উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তার কার্যালয় সূত্রে জানা যায়, মনুয়া গ্রামের আলা উদ্দিন চৌধুরী উক্ত ক্লিনিকের একজন ভূমি দাতা। তিনি স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা দপ্তরের অধীন গত ১৯৯৯ সালে রেজিস্ট্রিকৃত দলিলের মাধ্যমে ভূমি দান করেছেন। পরে সরকার উক্ত স্থানে গ্রামীণ পর্যায়ে স্বাস্থ্য সেবা নিশ্চিত করতে ফ্লাড লেভেলের উপরে পাকা ক্লিনিক ভবন নির্মাণ করেন। স্থানীয়রা জানান, নির্মাণের সময়েই ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান অত্যন্ত নিম্নমানের মালামাল দিয়ে ভবনটি নির্মাণ করেছে। যার ফলে মাত্র কয়েক বছরেই ভবনটির এ অবস্থা হয়েছে।

এ ব্যাপারে দায়িত্বপ্রাপ্ত উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা মোঃ রবিউল ইসলামের সাথে কথা হলে তিনি বলেন, আমি সবেমাত্র এখানে এসেছি। আমি কালই ওই ক্লিনিকে যাব এবং উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষকে বিষয়টি অবগত করব।

ডেসিমি/ইই





© All rights reserved © 2018 dailysylhetmedia
পোর্টাল বাস্তবায়নে : বিডি আইটি ফ্যাক্টরী লিঃ